বিয়ের আগে বউকে আপনার সম্পর্কে যে বিষয়গুলা না জানালে হতে পারে বিপদ

Spread the love

বিয়ে যা নিয়ে অনেক ছেলে এবং মেয়ের মাঝে থাকে হাজারো স্বপ্ন ,থাকে হাজারো আকাঙ্খা ,আর জীবনের দুইটা দশকের জমানো আবেগ এবং ভালোবাসা । অনেকে মনে করে বিয়েই জীবনের পরিপূর্নতা এনে দেয় ,বিয়েই জীবনকে স্বার্থক করে তুলে । আর একাকী জীবনকে পূর্নাঙ্গ পরিতৃপ্তি দেওয়ার একমাত্র মাধ্যম হলো বিয়ে ।

বিয়ের জন্য একটি ছেলে কতোইনা কষ্ট করে পরিশ্রম করে তার ক্যারিয়ার তৈরী করে । অন্যদিকে একটি মেয়ে তার জীবনটাকে গুছিযে বড় করে তুলে যেনো একটি সুদর্শন ছেলে তার জীবনে আসে আর তার জীবনের স্বপ্নগুলা পূরন করে দেয় । এটাতো হলো একটি মেয়ে  এবং একচটি ছেলের জীবনের গল্প । বা বিয়ে নিয়ে তাদের অনূভূতি । তবে বাস্তবটা একটু ভিন্ন ।

আমরা জানি জীবনে কাউকেই পারফেক্ট হিসাবে পাওয়া যায়না ।

জীবনে চলার পথে অনেক সময় অনেক স্যাক্রিফাইস এর মধ্যে দিয়ে নিজেকে গড়ে তুলতে হয় । আর জীবন কাটানোর ক্ষেত্রে এটাই সবচেয়ে বড় বিসর্জন দিতে হয় একটি ছেলে এবং মেয়ের । আপনি হয়তো বা পারফেক্ট কাউকে পাবেন না কারন অধিকাংশ জীবন সঙ্গিই হয় আনপারফেক্ট ,তার ভালো দিক,খারাপ দিক আপনাকে মানিয়ে নিতে হবে । তাহলেই হয়তোবা জীবনের ঘূর্নিপথে সুখটা আপনার হবে ।

যেহেতু আমাদের আজকের টপিকটা বিয়ের সেহেতু কথা না বাড়িয়ে চলুন বিয়ে নিয়ে কিছু ধারনা আপনাদের দেই কি করলে আপনার বৈবাহিক জীবনটা ভালো থাকবে অথবা কি ভাবে বিয়ে করলে আপনার জীবনের সমস্যাগুলার কোনো বীপরিত প্রতিক্রিয়া হবেনা আপনার জীবন সঙ্গির কাছ থেকে ।

একটা সম্পর্ক এবং ভালোবাসা টিকে থাকে বিশ্বাসের উপর নির্ভর করে। এ জন্য বিয়ে করার আগে আপনার জীবন সঙ্গীকে কিছু বিষয়ে আপনার একান্তই জানানো উচিত। আপনার জীবনে যদি আপনার কোনোরকম খারাপ অভ্যাস থেকে থাকে, সেটিও নির্ভয়ে অসংকোচে জানিয়ে দিন আপনার হবু বউ বা হবু জীবন সঙ্গীনিকে।

বিয়ের আগেই যদি আপনার ভালো লাগা মন্দ লাগা এই বিষয়গুলা আপনি আপনার হবু বউকে জানিয়ে দেন

তাহলে বিয়ের আগে থেকেই আপনার প্রতি আপনার জীবন  সঙ্গীর বিশ্বস্ততা ও সম্মান বাড়বে  বৈ কমবেনা ।

একটা কথা সবসময় মনে রাখবেন, সত্য কথা বললে কখনো কেউ

ছোট হয় না বরং বড় হয় তাকে সবাই বিস্বাসের চোখেই দেখে।

আপনি যেমন তাকে মানে আপনার জীবন সঙ্গিকে বিশ্বাস করবেন, ঠিক তেমনি ভাবে তিনিও যেনো মানে

আপনার বউও যেনো আপনাকে বিশ্বাস করতে পারে, এর জন্য কিছু কাজ তো আপনাকে করতে হবেই।

সে জন্য আপনার জীবনে আপনার যদি কোনোরকম গোপনীয়তা থেকে থাকে,

সে গোপনীয়তার বিষয় সম্পর্কে আপনার জীবন সঙ্গীকে জানিয়ে দেওয়া হবে একজন বুদ্ধিমান স্বামীর কাজ। তাহলে চলুন জানা যাক-

 বিয়ে করার আগে যেসকল বিষয় জানাতে হবে-

>> আমরা যেহেতু মানুষ আমাদের অনেকেরই বিভিন্ন নেশা অথবা আগ্রহ থাকতেই পারে। নেশা বলতে আমি খারাপ কোনো কিছ বুঝাচ্ছি না যেমন দরেন কারো বইপড়ার নেশা থাকে, কারো গেম খেলার নেশা। আবার অনেকের রান্না বান্না বা বেড়াতে অথবা ঘুরতে যাওয়ার নেশা থাকে। অনেকের আবার খারাপ নেশাও থাকে। যেমন- ধূমপান, ম’দপান বা মা’দকা’সক্তি।

এই জিনিসগুলার ক্ষেত্রে যার সান্যিধ্যে আপনি আপনার বাকি জীবনটা কাটাবেন বলে ঠিক করেছেন,

তাকে অবশ্যই আগে থেকেই জানিয়ে রাখুন। এসব জেনে যদি সে আপনার লাইফে আসে তাহলে

আসবে না হলে দরকার বলে মনে করছিনা ।

>> অনেকের জীবনেই দীর্ঘমেয়াদী পুরোনো কিছু রোগ থাকে ,থাকতেই পারে যেহেতু মানব জীবনে সৃষ্টিতর্তা আমদের কতোকিছুৃ দিয়েই না পরীক্ষা করে থাকেন । এই রোগ গুলার বেশিরভাগই জিনগত বা বংশগত। যা আপনাকে তো সমস্যায় ফেলে বটেই, আপনার পরিবারের সদস্যদেরকেও সমস্যায় ফেলে রাখে।

তাই অতি দীর্ঘমেয়াদী বা জন্মগত কোনো রোগ শরীরে অথবা মানসিক ভাবে থাকলে বিয়ের আগেই

আপনার হবু জীবন সঙ্গীকে জানিয়ে দেওয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ বলে আমি মনে করি ।

ইকটু আগেই বলেছি আমি আবারো বলছি  কোনো মানসিক অসুস্থতা থাকলে আপনি সেটা তাকে জানাতে ভুলবেন না।

>> আপনার অর্থ ধন সম্পদ এসকল জিনিস নিয়ে কখনো আপনার জীবন সঙ্গীকে বাড়িয়ে বলতে যাবেন না। এতে আপনার বৈবাহিক দাম্পত্য জীবন সম্পর্কের ওপর খুব খারাপ ভাবে প্রভাব পড়ে বা গড়ে তুলে । কারন আপনার জীবন সঙ্গী আপনার কি আছে না নাই তা আপনার কাছ থেকেই জানবে সেসময় আপনি যদি বাড়িয়ে বলেন আপনার এমুক তমুক আছে তখন হয়তোবা আপনার বউয়ের চাহিদাটা বেড়ে থাকবে সবসময়।

আর বাস্তবে গিয়ে যদি আপনি তা মেটাতে না পারেন তাহলেতো অশান্তি কেমন হয় বুঝেনি ।

আর্থিক অবস্থার সম্পর্কে আপনার পার্টনারের সুস্পষ্ট ধারণা থাকা প্রয়োজন যেনো ভবিষ্যৎ কোনো ঝামেলায় আপনাকে না পরতে হয়।

আমাদের জীবনের অনেক ক্ষেত্রেই আমরা নানারকম সমস্যায় পরে থাকি ।বিয়ে

>> আমাদের জীবনের ভূল ভ্রান্তি থাকতেই পারে ।  আপনি যদি আপনার অতীত জীবনে কোনোরকম অপরাধে অভিযুক্ত হয়ে থাকেন তাহলে সে বিষয়েও বিয়ের আগে আপনার জীবন সঙ্গীকে বা হবু বউকে জানিয়ে দিন। আপনার জীবনের নির্মম সব সত্য় কথাগুলো জেনেও যদি আপনার জীবন সঙ্গী আপনাকে ভালোবাসতে পারে, সেটাই আপনার জন্য বড় প্রাপ্তি।

আজকে আমি যে বিষয়গুলা আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি তা একটা সম্পর্ক বলেন একটা সংসার বলেন,

একটা জীবন বলেন তার জন্য খুবই গুরত্বপূর্ন । আপনি যেমন আনপার জীবন সঙ্গীকে আপনার মনের মতো করে চাইবেন ঠিক আপনারো

এ বিষয়টা মাথায় রাখা উচিৎ আপনার জীবন সঙ্গীও কিন্তু আপনাকে ঠিক তেমন ভাবেই চাইবে ।

বৈবাহিক জীবনে আসল জিনিসটা হলো বিস্বাস আমিও আগেও বলেছি তাই আমার অনুরুদ থাকবে সবার কাছে

একজন আরেকজন এর উপর বিস্বাস রেখে চলুন দেখবেন জীবনে সুখের কোনো অভাব নাই ।

সব ইচ্ছা জীবনে পূরন হয়না তাই কিছু কিছু ইচ্ছা মাটি করে দিয়ে চলুন ভালো থাকতে পারবেন ,

কিছু আকাঙ্খা বিসর্জন দিয়ে চলুন ভালোবাসা দিন ভালোবাসার জন্য ।

অনেকেই জিজ্ঞাস করে যারা আগে কাউকে ভালোবাসে তারা কি বিয়ের পরে বউকে ভালোবাসতে পারে ,

বা বউকি হাজবেন্ডকে ভালোবাসতে পারে । আমি বলবো হা পারে কারন জীবন কারো জন্য থেমে থাকেনা ।

ভাগ্যর পরিহাসে হয়তো একজনকে পাওয়া হয়না তিই বলে জীবন থেমে থাকেনা ।

মায়া জন্মে যায় একসময় এটা কেটে যায় জীবনের তাগিদে ।

আজকে এ পর্যন্তই ভালো থাকবেন সকলে ,আবার দেখা হবে নতুন কোনো আলোচনায় ।

Leave a Comment